লেনদেন কমলেও সূচকে ঊর্ধ্বগতি

0
70
লেনদেন কমলেও সূচকে ঊর্ধ্বগতি

এবার টানা বাড়ছে শেয়ারবাজারের মূল্য সূচক। এর আগে টানা সাত কার্যদিবসে প্রধান শেয়ারবাজার ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ১৪৩ পয়েন্ট হারানোর পর সর্বশেষ পাঁচ দিনে বেড়েছে ৮২ পয়েন্ট। সূচক বৃদ্ধিতে বহুজাতিকসহ বৃহৎ 

মূলধনী কিছু কোম্পানির শেয়ারের দরবৃদ্ধির পাশাপাশি ব্যাংক খাতের শেয়ারের দরবৃদ্ধি মুখ্য ভূমিকা রেখেছে।

বাজার-সংশ্নিষ্টরা জানান, জাতীয় সংসদ নির্বাচন কাছে আসার সময় বাজার সূচকে ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতা দেখা যাচ্ছে। সূচকে বেশি প্রভাব রাখে এমন সব কোম্পানির শেয়ারে রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন বিনিয়োগ সংস্থা আইসিবিসহ কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের বিনিয়োগ সূচক বাড়াচ্ছে বলে জানান তারা।

তবে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের লেনদেনে খুব বেশি অংশগ্রহণ নেই বলেও জানায় শীর্ষ মার্চেন্ট ব্যাংক ও ব্রোকারেজ হাউসগুলো। নির্বাচন ঘিরে নানা শঙ্কার কারণে বেশিরভাগ বিনিয়োগকারী পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছেন। তাছাড়া সাম্প্রতিক দরপতনে বিনিয়োগকারীদের বড় অংশ লোকসানে থাকায় নতুন করে বিনিয়োগ করার ক্ষমতা হারিয়েছেন। এই উভয় কারণে শেয়ার কেনাবেচার পরিমাণও কমছে।

গতকাল দেশের দুই শেয়ারবাজারে সর্বমোট ৩৮৯ কোটি ৮৯ লাখ টাকা মূল্যের শেয়ার কেনাবেচা হয়েছে, যা রোববারের তুলনায় ২৪ কোটি ৪৪ লাখ টাকা কম। গতকাল ডিএসইতে ৩৫৭ কোটি ৪২ লাখ টাকার এবং সিএসইতে ৩২ কোটি ৪৭ লাখ টাকা মূল্যের শেয়ার কেনাবেচা হয়েছে।

দিনের লেনদেন শেষে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, ডিএসইতে ১৭৭ কোম্পানির শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের বাজারদর বেড়েছে, কমেছে ১২৭টির এবং অপরিবর্তিত ৩৮টির দর। এতে ডিএসইএক্স সূচক ১৮ পয়েন্ট বেড়ে ৫৩০০ পয়েন্ট ছাড়িয়েছে। 

সূচক বৃদ্ধিতে বড় প্রভাব রেখেছে ব্যাংক খাতের শেয়ারের দরবৃদ্ধি। গতকাল খাতটির ৩০ কোম্পানির মধ্যে ২৫টিরই বাজারদর বেড়েছে, কমেছে তিনটির এবং অপরিবর্তিত ছিল বাকি দুটির দর। সার্বিক বিচারে খাতটির শেয়ারদর শূন্য দশমিক ৬০ শতাংশ বাড়লেও ডিএসইএক্স সূচকে যোগ করেছে সাড়ে ৭ পয়েন্ট। 

একক কোম্পানি হিসেবে গতকাল এনসিসি, প্রাইম, এক্সিম, ওয়ান, ট্রাস্ট ও মার্কেন্টাইল ব্যাংকের শেয়ারদর বৃদ্ধিই সূচকে বেশি পয়েন্ট যোগ করেছে। তবে সর্বাধিক সোয়া এক পয়েন্ট যোগ করেছে বেক্সিমকো ফার্মা। শেয়ারটির দর এক টাকা বেড়ে সর্বশেষ ৭৬ টাকা ২০ পয়সায় কেনাবেচা হয়েছে। গতকাল ব্র্যাক ব্যাংক, পূবালী ব্যাংক, বসুন্ধরা পেপার, ইউনাইটেড পাওয়ার জেনারেশন, ফারইস্ট লাইফ সূচকে সর্বাধিক নেতিবাচক প্রভাব 

ফেলেছে। এগুলোর কারণে গতকাল সূচক হারিয়েছে সাড়ে চার পয়েন্ট।

খাতওয়ারি লেনদেন পর্যালোচনায় দেখা গেছে, ব্যাংক খাতের বাইরে গতকাল প্রকৌশল, ওষুধ ও রসায়ন, খাদ্য ও আনুষঙ্গিক, সিমেন্ট, সিরামিক, তথ্য ও প্রযুক্তি, টেলিযোগাযোগ এবং বিবিধ খাতের অধিকাংশ শেয়ারের বাজারদর বেড়েছে। বিপরীতে বীমা, ব্যাংকবহির্ভূত আর্থিক প্রতিষ্ঠান, পাট এবং কাগজ ও ছাপাখানা খাতগুলোর অধিকাংশ শেয়ারের বাজারদর কমেছে। বস্ত্র এবং জ্বালানি ও বিদ্যুৎ খাতে ছিল মিশ্রধারা।

গতকাল ১২ বহুজাতিক কোম্পানির মধ্যে আটটিরই বাজারদর বেড়েছে। এগুলো হলো- সিঙ্গার, গ্লাক্সোস্মিথক্লাইন, মারিকো, ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকো, হেইডেলবার্গ, লাফার্জ-হোলসিম সিমেন্ট, বার্জার পেইন্টস ও গ্রামীণফোন। দর হারানো বাকি চার শেয়ার হলো লিনডে বিডি, রেকিট বেনকিজার, আরএকে সিরামিক্স ও বার্জার পেইন্টস। এ ছাড়া রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন ১৯ কোম্পানির মধ্যে গতকাল ১৭টির শেয়ার কেনাবেচা হয়েছে। এর মধ্যে ১৩টিরই দর বেড়েছে। এদিকে গতকাল দুর্বল মৌলভিত্তির পাঁচ কোম্পানির শেয়ার দিনের সার্কিট ব্রেকারের সর্বোচ্চ দরে কেনাবেচা হয়েছে। এগুলো হলো বিডি অটোকার, মেঘনা কনডেন্সড মিল্ক্ক, সোনালী আঁশ, সোনারগাঁও টেক্সটাইল এবং আইসিবি ইসলামিক ব্যাংক।

ডিএসইতে দরবৃদ্ধির শীর্ষ তালিকায় থাকা বাকি শেয়ারগুলোও ছিল দুর্বল মৌলভিত্তির। এর মধ্যে তুংহাই নিটিংয়ের শেয়ারদর ৬ শতাংশ বেড়ে সর্বশেষ ৫ টাকা ৩০ পয়সায় কেনাবেচা হয়েছে, ছিল দরবৃদ্ধির শীর্ষ দশের মধ্যে নবম স্থানে। আবারও মালিকানা বদলের গুঞ্জন উঠেছে শেয়ারটি নিয়ে। এ ছাড়া পিপলস লিজিং কোম্পানির শেয়ারদর ৬ শতাংশ বেড়ে ৫ টাকা ৩০ পয়সা দরে কেনাবেচা হয়েছে। ৫ শতাংশের ওপর দরবৃদ্ধি পাওয়া বাকি তিন শেয়ার ছিল মুন্নু সিরামিক, বিআইএফসি ও এসকে ট্রিমস।

বিপরীতে গতকাল প্রগতি ইন্স্যুরেন্স ৬ শতাংশ দর হারিয়ে সর্বশেষ ২৬ টাকায় কেনাবেচা হয়েছে, ছিল দরপতনের শীর্ষে। এরপরের অবস্থানে থাকা বিচ্‌ হ্যাচারির দর পৌনে ৬ শতাংশ কমে ১৩ টাকা ১০ পয়সায়, ৫ শতাংশ দর হারিয়ে প্রগতি লাইফ ইন্স্যুরেন্স ১০৮ টাকা ৪০ পয়সায় নেমেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here