লিটনের রেকর্ড গড়া ডাবল সেঞ্চুরিতে জবাব রংপুরের

0
173

দুবাই থেকেই দারুণ ছন্দ নিয়ে দেশে ফিরেছিলেন লিটন কুমার দাস। কিন্তু ওয়াল্টন জাতীয় ক্রিকেট লিগের দ্বিতীয় রাউন্ডের ম্যাচে রাজশাহীর বিপক্ষে প্রথম ইনিংসে ছিলেন ব্যর্থ। তবে দ্বিতীয় ইনিংসেই ঘুরে দাঁড়ালেন তিনি। করলেন দুর্দান্ত এক ডাবল সেঞ্চুরি। আর তার ডাবলে ভর করেই রাজশাহীকে দারুণ জবাব দিচ্ছে রংপুর বিভাগ।

তবে এখনও ইনিংস হারের শঙ্কা কাটেনি রংপুরের। ১১৯ রানে পিছিয়ে আছে দলটি। প্রথম ইনিংসে মাত্র ১৫১ রানে অলআউট হয়েছিল তারা। এদিন লিটনের ব্যাটেই ঘুরে দাঁড়ায় দলটি। মাত্র ১৪০ বলে ডাবল সেঞ্চুরি স্পর্শ করেছেন তিনি। তাতে ভেঙেছেন নিজেরই রেকর্ড। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানের এটা দ্রততম ডাবল সেঞ্চুরি। গত এপ্রিলে বিসিএলে পূর্বাঞ্চলের হয়ে মধ্যাঞ্চলের বিপক্ষে ১৯৩ বলে ডাবল সেঞ্চুরি করেছিলেন। খেলেছিলেন ক্যারিয়ার সেরা ২৭৪ রানের ইনিংস

এদিন জাহিদ জাভেদের সঙ্গে ওপেনিং জুটিতে ৯৮ রান করেন লিটন। এরপর মাহমুদুল হাসানের সঙ্গে ২১৯ রানের দারুণ এক জুটি গড়েন এ উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান। শুরু থেকেই আগ্রাসী লিটন সেঞ্চুরি স্পর্শ করেছিলেন মাত্র ৮১ বলে। পরের একশ রান তুলতে আরও বেশি আক্রমণাত্মক ছিলেন তিনি। ৫৯ বলে এসেছে পরের একশ রান। তবে ডাবল সেঞ্চুরি করার এক বল পরই আউট হয়ে যান লিটন। ১৪২ বলে ৩২টি চার ও ৪টি ছক্কায় ২০৩ রানের ইনিংস খেলেন এ ওপেনার। ফলে তৃতীয় দিনশেষে ২ উইকেটে ৩১৯ রান করেছে রংপুর। মাহমুদুল উইকেটে আছেন ৭২ রানে। জাহিদের ব্যাট থেকে আসে ৩২ রান।

এর আগে আগের দিনের দুই উইকেটে ৪১৯ রান নিয়ে ব্যাট করতে নেমে এদিন আরও দুই উইকেট হারিয়ে ৫৮৯ রান তুলে ইনিংস ঘোষণা করে রাজশাহী। নাজমুল হোসেন শান্ত ও মিজানুর রহমানের দেখানো পথে সেঞ্চুরি তুলে নেন জুনায়েদ সিদ্দিকিও। ১৯৯ বলে ৬টি চারের সাহাজ্যে ১০০ রান করেন এ টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান। তিনি সেঞ্চুরি স্পর্শ করার পরই ইনিংস ঘোষণা করে রাজশাহী। এছাড়া ফরহাদ হোসেন ৬২ ও জহুরুল ইসলাম ৫৫ রান করেন।

সংক্ষিপ্ত স্কোর : (তৃতীয় দিন শেষে)

রংপুর বিভাগ :

প্রথম ইনিংস : ১৫১

দ্বিতীয় ইনিংস : ৩১৯/২ (লিটন ২০৩, জাহিদ ৩৫, মাহমুদুল ৭২*, সাজেদুল ২*; রেজা ০/৩২, মহর ০/৪৪, তাইজুল ১/৯৮, শফিকুল ১/৬০, সানজামুল ০/৪০, ফরহাদ ০/২৪, সাব্বির ০/১৫)।

রাজশাহী বিভাগ :

প্রথম ইনিংস : ৫৮৯/৪ (শান্ত ১৭৩, মিজানুর ১৬৫, জুনায়েদ ১০০*, ফরহাদ ৬২, জহুরুল ৫৫, সাব্বির ১৫*; শুভাশিস ০/৭৮, আরিফুল ১/৮৬, সাদ্দাম ০/৯২, সোহরাওয়ার্দী ১/১০৩, মাহমুদুল ১/৮১, সাজেদুল ১/৭৮, তানবীর ০/২৯, নাঈম ০/১৯, ধীমান ০/৭)।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here