বাংলাদেশের জায়গায় থাকলে ফলোঅন করাতেন টেইলর

0
234

জিম্বাবুয়ের শেষ উইকেটটা নেওয়ার পর দিনের খেলাও শেষ হয়ে যায়। ৩০৪ রানে গুটিয়ে যাওয়া জিম্বাবুয়ে ফলোঅন এড়াতে পারেনি। কিন্তু বাংলাদেশ তাদের ফলোঅন করাবে কিনা তা জানাতে অপেক্ষায় রেখেছে পরের দিনের সকালের জন্য। ম্যাচের এই পরিস্থিতিতে তাই বাংলাদেশের জন্য সহজ পথ দেখছেন সেঞ্চুরি করা ব্র্যান্ডন টেইলর।

বাংলাদেশের ৫২২ রানের জবাবে জিম্বাবুয়েকে আশা জুগিয়েছে টেইলরের ব্যাট। পিটার মুরকে নিয়ে ১৩৯ রানের জুটি গড়ে তিনিই ম্যাচ পঞ্চম দিনে নিয়ে যাওয়ার পরিস্থিতি তৈরি করেছেন। টেস্টে বাংলাদেশের বিপক্ষে চতুর্থ ও ক্যারিয়ার পঞ্চম সেঞ্চুরি করেছেন।

দিনশেষে নিজেদের পিছিয়ে থাকার পরিস্থিতি তুলে ধরে বাংলাদেশের জায়গায় থাকলে কি করতেন জানিয়েছেন তা, ‘আমরা এখনও বেশ পেছনে। তারা ২২০ রানে এগিয়ে ( আসলে ২১৮)। আমি যদি বাংলাদেশী হতাম তাহলে আবার বোলিং করতাম। কারণ যদিও আমরা ৩০০ পেয়ে যাই, বাংলাদেশকে তবু ৮০ তাড়া করতে হবে। তারা হয়তো দুই সেশন ব্যাট করতে চাইতে পারে, তখন নিশ্চিতভাবেই আমরা অনেক পিছিয়ে পড়ব।’

এই ম্যাচের ব্যবধান গড়ে দিয়েছে প্রথম ইনিংসই। টেইলর নিজেদের ঘাটতি দেখছেন সেখানেই, ‘যখন কোন দল ৫০০ পেয়ে যায় তারা কম সময়ই হারে। নিজেদের সত্যিকারের সুযোগ সৃষ্টির জন্য আমাদের অন্তত এই ইনিংসে ৪০০/৪৫০ রান করা দরকার ছিল। দ্বিতীয় ইনিংসে আমাদের আরও মেলে ধরতে হবে নিজেদের। তবু চেষ্টা থাকবে যেন সিরিজ জিততে পারি।’

‘আগামীকাল এটা আরও কঠিন হতে যাচ্ছে। আমরা যদি পঞ্চম দিনে যাই, সেক্ষেত্রে উইকেট ভাঙ্গবে এবং সেটা সবকিছুই কঠিন করে তুলবে। তাইজুল যেহেতু প্রথম ইনিংসেই ৫ উইকেট পেয়েছে, দ্বিতীয় ইনিংসে তাকে মোকাবেলা করা আরও কঠিন হবে।’

ফলোঅন করানোই বাংলাদেশের সহজ পথ, টেইলর ভাবলেও বাংলাদেশ অতীত দেখে ভাবতে পারে ভিন্ন। ২০১৪ সালে এখানে ১০১ রানের লক্ষ্যে নেমেই হারতে বসেছিল বাংলাদেশ। ৭ উইকেট খুইয়ে কোনরকমে ভিড়িছিল জয়ের বন্দরে। চতুর্থ ইনিংস ব্যাটিং এড়াতেই চাইতে পারে বাংলাদেশ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here