‘পরিপক্ব’ হয়েই এসেছেন সাদমান

0
213

হুট করেই জাতীয় দলে সুযোগ পেয়েছেন সাদমান ইসলাম। তাই তার জন্যে প্র্যাকটিস কিট এখনো তৈরি হয়নি। মঙ্গলবার অধিনায়ক সাকিব আল হাসানের সঙ্গে অনুশীলনে এলেন এইচপি দলের জার্সি চাপিয়ে। ডাকটা হুট করে হলেও সাদমানের প্রস্তুতি আসলে অনেক দিনের। হুটহাট অভিষেক হয়ে যাওয়াদের দলে নয়। এই তরুণ মনে করেছেন বড় মঞ্চে পোক্ত হয়েই এসেছেন তিনি।

বছর চারেক ধরেই ঘরোয়া ক্রিকেটের চেনা মুখ সাদমান। টেস্ট দলে ডাক পাওয়ার আগে খেলে ফেলেছেন ৪২টি প্রথম শ্রেণীর ম্যাচ। অনূর্ধ্ব-১৯ দলের সতীর্থ কেউ কেউ যখন তিন বছর আগেই জাতীয় দলে তকমা লাগিয়েছেন সাদমান সেখানে ছিলেন বেশ আড়ালে। তবে প্রথম শ্রেণীতে ব্যাটিংয়ের ধরণে তার গায়ে সেঁটেছে ‘টেস্ট ম্যাটেরিয়াল’ তকমা।

এই দেরিতে সুযোগ আসাকেই সাদমানের কাছে মনে হয় ভীষণ ইতিবাচক ঘটনা, ‘পরিণত হয়ে আসাটা আসলে অনেক জরুরী। যেমন প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটে খেলে আসার পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটটা হয়তো একটু চিন্তাভাবনা করেই খেলতে হয় সবার। আর আমার কাছে মনে হয় প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেট আর জাতীয় দলের পার্থক্য অনেক। কিন্তু যেহেতু আমি অনেকগুলো ম্যাচ খেলেছি তাই আমি জানি যে কিভাবে ইনিংসটা গুছিয়ে নিতে হবে। এই বিষয়টি যদি আমার জানা থাকে তাহলে আমার মনে হয় আন্তর্জাতিক পর্যায়ে একটু হলেও ভাল করার সুযোগ থাকে।’

এবার জাতীয় লিগে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক তিনি। ষাটের উপর গড় নিয়ে করেছেন ৬৪৮ রান। টপ অর্ডার নিয়ে সম্প্রতি টেস্টে ভুগতে থাকা বাংলাদেশ দলে তবু এই পারফরম্যান্স দিয়েই ডাক পড়েনি ওপেনার সাদমানের। ডাক পড়েছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে প্রস্তুতি ম্যাচের বিসিবি একাদশে।

বিসিবি একাদশে সুযোগ পেলেও নজরটা আসলে তার উপর ছিল না। কিন্তু সাদমান জানতেন, জাতীয় লিগের সর্বাধিক রানের চেয়েও গুরুত্ব পাবে এই ম্যাচে রান পাওয়া। রান পেলে নজরটাও নিজের দিকে আসতেই পারে। প্রায় চার ঘণ্টা ক্রিজে পড়ে থাকার নিবেদন দেখিয়ে খেলা ৭৩ রানের ইনিংসটাই সেটা করে দিয়েছে,  ‘এটা তো অবশ্যই (প্রস্তুতি ম্যাচে রান পাওয়াই দলে এনেছে)। সেখানে কোচ ছিল, নির্বাচকেরা ছিলেন। তাদের সামনে আমি ভাল করেছি। শুরুতে ১৩ জনের স্কোয়াড ঘোষণা করা হয়েছিল। তবে আমার কাছে মনে হয়েছে যে হয়তো এই ম্যাচটিতে আমি ভাল করতে পারি বা কিছু করতে পারি তাহলে সুযোগ আসতে পারে। সেভাবেই নিজেকে প্রস্তুত করে আমি ম্যাচটি খেলেছি।’

জানতেন জায়গামতো রান করলে আসবে সুযোগ। তাই মানসিক প্রস্তুতি নিয়েই অপেক্ষায় ছিলেন সাদমান, যদি অভিষেকটা হয়েই যায় তার জন্যও নিজেকে তৈরি রেখেছেন ২৩ বছর বয়সী ব্যাটসম্যান,  ‘আমি তো অবশ্যই নিজেকে তৈরি করে রাখব। আর সুযোগ যদি আসে তাহলে আমি সবসময় যেভাবে খেলে আসছি সেভাবে খেলব। কিভাবে নিজেকে গুছিয়ে নিতে হয়, পারফর্ম করতে হয় এবং কিভাবে বড় রান করতে হয় এগুলো ঠিক রাখতে হবে। আমি সেভাবেই নিজেকে সেট করি আর সেভাবেই সেট করছি নিজেকে।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here