নির্বাচন সফলে সারা দেশে ১০ হাজার র‍্যাব থাকবে: বেনজীর

0
130
কারওয়ান বাজারে র‍্যাবের মিডিয়া সেন্টারে বেনজীর আহমেদ নির্বাচনের প্রস্তুতি নিয়ে কথা বলেন। ছবি: আশরাফুল আলম

কারওয়ান বাজারে র‍্যাবের মিডিয়া সেন্টারে বেনজীর আহমেদ নির্বাচনের প্রস্তুতি নিয়ে কথা বলেন। ছবি: আশরাফুল আলম

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সফল করার জন্য সারা দেশে ১০ হাজার র‍্যাব সদস্য মোতায়েন করা হবে বলে জানিয়েছেন সংস্থাটির মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ।
একই সঙ্গে র‍্যাব মহাপরিচালক জানান, অসত্য তথ্য প্রচার ঠেকাতে তাঁরা ফেসবুকে একটি পেজের মাধ্যমে সাইবার নিউজ ভেরিফিকেশন (সংবাদ-যাচাই) সেন্টার চালু করেছেন। নির্বাচনের সময়ে কেউ যদি কোনো খবরে সন্দেহ প্রকাশ করে, তাহলে তা তাদের কাছে পাঠালে তার সত্যতা তারা যাচাই করে ফিডব্যাক দেবে।

আজ বৃহস্পতিবার সকালে রাজধানীর কারওয়ান বাজারে র‍্যাবের মিডিয়া সেন্টারে বেনজীর আহমেদ এসব কথা বলেন।

বেনজীর আহমেদ বলেন, সংসদ নির্বাচনকে সফল করার জন্য এক বছর ধরে তাঁরা কাজ করে যাচ্ছেন। নির্বাচনের জন্য হুমকি ছিল অবৈধ অস্ত্র ও জঙ্গিবাদ। গত এক বছরে দেশের বিভিন্ন জায়গায় তাঁরা অভিযান চালিয়ে অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার করেছেন। জঙ্গিবাদী কর্মকাণ্ড দূর করতে কাজ করেছেন।

নির্বাচন সামনে রেখে গুজব ও অসত্য তথ্য প্রচার হয়েছে জানিয়ে বেনজীর আহমেদ বলেন, নির্বাচনের সময় ঘনিয়ে আসার সঙ্গে সঙ্গে তাঁরা দেখেছেন, গুজব ও মিথ্যা কথা প্রচার করার চেষ্টা হয়েছে। এর পেছনে একটি স্বার্থান্বেষী গোষ্ঠী লক্ষ-কোটি টাকা খরচ করেছে। মিথ্যা তথ্য দিয়ে ও অসত্য গল্প বলে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করেছে। তিন মাসের বেশি সময় ধরে এটি রোধে তাঁরা কাজ করেছেন। এই কারণে তাঁরা সচেতনতামূলক একটি তথ্যচিত্র তৈরি করেছেন।

র‍্যাব মহাপরিচালক বলেন, এমন অসত্য তথ্যের প্রচার ঠেকাতে তাঁরা এবার ফেসবুকে একটি পেজের মাধ্যমে সাইবার নিউজ নোটিফিকেশন সেন্টার চালু করেছেন। এখানে তাঁদের লোকজন দায়িত্ব পালন করবেন। কেউ যেন মানুষকে বিভ্রান্ত করতে না পারে, সে জন্য তাঁরা কাজ করবেন।

নির্বাচনকে সামনে রেখে র‍্যাবের ব্যাপক প্রস্তুতির কথা উল্লেখ করে বেনজীর আহমেদ বলেন, এই নির্বাচন সফল করার জন্য সদস্যদের বিশেষ প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে। প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম সরবরাহ করা হয়েছে। সারা দেশের সব আসনে মোবাইল টিমের মাধ্যমে দায়িত্ব পালন করা হবে। সামগ্রিক আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় কাজ করবে র‍্যাব। রিটার্নিং কর্মকর্তা সহায়তা চাইলে সে অনুযায়ী তাঁরা সহায়তা করবেন।

র‍্যাব মহাপরিচালক বলেন, নির্বাচন কমিশন তাঁদের হেলিকপ্টার ব্যবহারের অনুমতি দিয়েছে। তাঁরা প্রয়োজন অনুসারে হেলিকপ্টার ব্যবহার করবেন। দেশের বিভিন্ন স্থানে যাওয়ার জন্য চারটি হেলিকপ্টার তৈরি থাকবে। কেউ বিশৃঙ্খলা করলে তাঁরা দ্রুত সেখানে পৌঁছে আইনশৃঙ্খলা স্বাভাবিক করতে কাজ করবেন। রিটার্নিং কর্মকর্তা চাইলে তাঁরা ভোট গণনার সময় থাকবেন। নির্বাচন উপলক্ষে ১০ হাজার র‍্যাব সদস্য মোতায়েন থাকবে। এ জন্য বিশেষ ক্যাম্প স্থাপন করা হবে। র‍্যাবের একটি বিশেষ দল তৈরি থাকবে। বিশেষ প্রয়োজনে তাদের দেশের বিভিন্ন স্থানে হেলিকপ্টারে পাঠানো হবে। বোমা নিষ্ক্রিয় দল ও গোয়েন্দা দল সারা দেশে কাজ করবে।

ভোটারদের সতর্ক করে বেনজীর আহমেদ বলেন, তাঁরা প্রত্যাশা করছেন, কেউ গুজবে কান দেবেন না। কোথাও অস্বাভাবিক কিছু দেখলে জনগণ তাঁদের জানাবে। দেশের উন্নয়ন-অগ্রগতি ধ্বংস করে—এমন কিছু তাঁরা হতে দেবেন না। দেশবাসীকে সঙ্গে নিয়ে সবাইকে নিরাপদ রাখতে চায় র‍্যাব। সবাই ভোটকেন্দ্রে যাবেন, ভোট দেবেন। কোনো ধরনের অপতৎপরতা বরদাশত করা হবে না। কালোটাকা বিতরণ করা হয়েছে—এ ধরনের ঘৃণ্য অপচেষ্টার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here