টেস্ট ক্রিকেট সবচেয়ে উপভোগ করি: আবু জায়েদ

0
176

ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে রুবেল হোসেন টেস্ট খেলতে চান না বলে খবর বেরিয়েছিল। সে খবর নিশ্চিত হওয়া না গেলেও পেসারদের টেস্ট খেলার প্রতি অনীহা টের পাওয়া গেছে আগেও। অথচ ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফর দিয়েই টেস্টে শুরু করা আবু জায়েদ রাহি বলছেন এই সংস্করণটাই তার সবচেয়ে প্রিয়।

মাশরাফি মর্তুজার পর শাহাদাত হোসেন রাজিব ছাড়া সাদা পোশাকে এখনো পর্যন্ত কোন পেসারই অল্প সময়ের জন্যও থিতু হতে পারেননি। হয় চোটে পড়ে ক্যারিয়ার লম্বা হয়নি, নয়তো যথেষ্ট তাড়নার অভাবে হয়ে গেছেন কক্ষচ্যুত। টি-টোয়েন্টির রঙচঙে সময়ে বনেদি সাদা পোশাকের প্রতি টানটাও যেন মনে হচ্ছিল পেসারদেরই সবচেয়ে কম।

বাকিরা কে কি ভাবছে তা সরিয়ে রেখে আবু জায়েদ রাহি শোনালেন নিজের কথা। বুধবার দলের অনুশীলন ছিল না। হোটেলে বিশ্রামের ফাঁকে টেস্ট ক্রিকেটের জন্য আলাদা রোমাঞ্চ খেলা করল তার চোখেমুখে, ‘আমি সবসময় বলছি, টেস্ট ক্রিকেট সবচেয়ে উপভোগ করি। ওয়ানডে, টি-টোয়েন্টিও আমার পছন্দ তবে টেস্ট সবচেয়ে বেশি উপভোগ করি। ছোটবেলা থেকেই টেস্ট ক্রিকেট পছন্দ করতাম।’

টেস্ট ক্রিকেট পছন্দ করি না, মুখে হয়ত অনেকেই তা বলতে চাইবেন না। কিন্তু সবচেয়ে প্রিয় বলার ক্ষেত্রে নিশ্চিতভাবেই কাজ করে আলাদা আবেগ। সেদিক থেকে রাহি উজ্জ্বল ব্যতিক্রমই বটে। এই প্রেমটা অবশ্য এক দিনে তৈরি হয়নি। পঞ্চাশটার বেশি প্রথম শ্রেণীর ম্যাচ খেলে তবেই ঢুকেন টেস্ট দলে। লম্বা সময় বল করার অভ্যাসটা তৈরি হয়েছে ঘরোয়া ক্রিকেটে। এখন সেটাই তার প্যাশনের জায়গা, ‘প্রথম শ্রেণীতে খেলার পর থেকেই এরকম হয়েছে। যেমন ধরেন উইকেট নিতে হলে অনেকসময় নিয়ে বোলিং করতে হবে। উইকেটের ক্ষুধাটা খুব বেশি ছিল আমার। এটা থেকেই আমার প্যাশন হয়ে গেছে, লম্বা স্পেল বোলিং করার। ’

ওয়েস্ট ইন্ডিজে দুই টেস্টে ৭ উইকেট নিয়েছেন। কিন্তু বাকি পেসারদের বেহাল দশায় মোস্তাফিজুর রহমানকে বাদ দিলে তিনিই এখন টেস্ট দলের মূল পেসার। দল কারো দিকে তাকিয়ে থাকলে অনেক সময় তৈরি হয় চাপ, রাহি সেটাই দেখছেন উল্টোভাবে, ‘চাপ বলব না, কারণ দলের আশা যদি থাকে তাহলে আমারও করার চেষ্টা থাকবে, আমারও আগ্রহ থাকবে। আমার মনে হয় না, এটা চাপ। দলের একটা চাহিদা।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here