একসঙ্গে নাচলেন সৌদি তরুণ-তরুণীরা

0
184
একসঙ্গে নাচলেন সৌদি তরুণ-তরুণীরা

সৌদি আরবের জন্য উদ্বেগভরা একটি বছর শেষ হতে চলেছে। সাংবাদিক জামাল খাসোগি হত্যায় আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় সৌদি যুবরাজ মোহাম্মাদ বিন সালমানের (৩৩) মুণ্ডুপাত করছেন। পরিস্থিতি আরও গরম হওয়ার আশঙ্কা বিশেষজ্ঞদের মনে। এরই মধ্যে সৌদি আরবে নতুন এক সাংস্কৃতিক সংস্কারের খবর জানা গেছে। নারী-পুরুষের একসঙ্গে কনসার্ট দেখার ওপর নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়েছে দেশটি।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া একটি কনসার্টের ভিডিওতে দেখা যায়, হাজার হাজার সৌদি তরুণ-তরুণী একটি ডিজে (ডিস্ক জকি) সংগীতের সঙ্গে নাচছেন। সৌদি সরকারের সরাসরি পৃষ্ঠপোষকতায় কনসার্টটি ১৪ ডিসেম্বর সৌদির রাজধানী রিয়াদে আয়োজন করা হয়। ফরাসি সংগীত তারকা দেভিদ গিতা এই কনসার্টকে মাতিয়ে তোলেন। রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের দাবি, এর মাধ্যমে যুবরাজ বিন সালমান বিশ্বকে দেখাতে চাইছেন, সৌদি আরব সংস্কারের পথেই আছে। ধীরে ধীরে সমাজে আধুনিকায়ন নিয়ে আসছে তারা। যে সংস্কার কর্মসূচির মাধ্যমে বিশ্বের পাদপ্রদীপের আলো কেড়েছিলেন তরুণ বিন সালমান, তা এখনো জারি আছে।

যুবরাজ বিন সালমান গত জুনে সৌদি আরবে নারীদের গাড়ি চালানোর ওপর নিষেধাজ্ঞা তুলে দেন। ওই মাসে পারিবারিক অনুষ্ঠানে এক সৌদি তরুণীর নাচের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ঝড় তোলে। তখন অভিযোগ উঠেছিল, মুসলিম দেশের আচরণবিধি লঙ্ঘন করেছেন ওই তরুণী। এখন নারীদের নাচার ওপর বিধিনিষেধ তুলে দিয়ে দেশটি সাংস্কৃতিক সংস্কার কর্মসূচি এগিয়ে নেওয়ারই বার্তা দিল। উপরন্তু নারী-পুরুষের একসঙ্গে নাচারও বিরল সুযোগ দিল সরকার।

তবে সমালোচকদের দাবি, সাংবাদিক জামাল খাসোগি খুনের পর সৌদিবিরোধী বিশ্বজনমতের দৃষ্টি ভিন্ন দিকে সরিয়ে নিতেই এটি বিন সালমানের একটি কূটচাল। তাঁরা বলেন, সৌদি যুবরাজ যদিও সাংস্কৃতিক পরিবর্তন নিয়ে আসছেন, তবু রাজপরিবারের কোনো সমালোচনা এখনো সহ্য করতে পারেন না তিনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here