উইলিয়ামসের সেঞ্চুরিতে বড় লক্ষ্য বাংলাদেশের

0
81

 রান তুলতেই নেই জিম্বাবুয়ের দুই ওপেনার। শুরুতেই সফরকারীদের চেপে ধরে টাইগাররা। সেখান থেকে শনউইলিয়ামসের দারুণ প্রতিরোধ। সঙ্গী হিসেবে কখনো পেলেন ব্রেন্ডন টেইলরকেকখনো সিকান্দর রাজাকেকখনোপিটার মুর। কার্যকরী জুটি গড়েছেননিজেও তুলে নিয়েছেন ওয়ানডে ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় সেঞ্চুরি। তাতেই বড় সংগ্রহপেয়েছে জিম্বাবুয়ে। নির্ধারিত ৫০ ওভার  উইকেটে ২৮৬ রান করেছে সফরকারী দলটি। ফলে ২৮৭ রানের বড় লক্ষ্যইপেয়েছে টাইগাররা।

শেষ পর্যন্ত ব্যাট করে ১২৯ রানের দারুণ এক ইনিংস খেলেছেন উইলিয়ামস। ১৪৩ বলে এ রান করতে ৮টি চারের পাশাপাশি ৩টি ছক্কা মেরেছেন এ ব্যাটসম্যান। এছাড়া টেইলর ৭৫, রাজা ৪০ ও মুর ২৮ রান করেছেন। বাংলাদেশের পক্ষে ৫৮ রানের খরচায় ২টি উইকেট পেয়েছেন নাজমুল ইসলাম অপু।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

জিম্বাবুয়ে: ২৮৬/৫ (৫০ ওভার) (মাসাকাদজা ২, জুওয়াও ০, টেইলর ৭৫, উইলিয়ামস ১২৯*, রাজা ৪০, মুর ২৮, চিগুম্বুরা  ১*;  রনি ১/৩৯, সাইফউদ্দিন ১/৫১, আরিফুল ০/১৭, মাশরাফি ০/৫৬, সৌম্য ০/১৬, নাজমুল ২/৫৮, মাহমুদউল্লাহ ০/৪০)।

শন উইলিয়ামসের সেঞ্চুরি

ওয়ানডে ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় সেঞ্চুরি তুলে নিয়েছেন জিম্বাবুয়ের মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান শন উইলিয়ামস। দলের প্রয়োজনীয় সময়ে দারুণ ব্যাট করে সেঞ্চুরির পাশাপাশি জিম্বাবুয়ের ইনিংস মেরামত করেছেন এ ব্যাটসম্যান। ব্রেন্ডন টেইলরের পর সিকান্দার রাজার সঙ্গে দুটি দারুণ জুটি গড়েন। সাইফউদ্দিনের বলে লংঅনে বল ঠেলে সিঙ্গেল নিয়ে সেঞ্চুরি স্পর্শ করেন তিনি। ১২৪ বলে ৭টি চারের সাহায্যে এ রান করেন তিনি।

রাজার বিদায়ে ভাঙল জুটি

উইকেটে নেমেই হাত খুলে ব্যাট করছিলেন সিকান্দার রাজা। শন উইলিয়ামসের সঙ্গে ৮৪ রানের দারুণ এক জুটিও গড়েছিলেন।  তবে রাজাকে ফিরিয়ে  জুটি ভেঙেছেন নাজমুল ইসলাম অপু। তার ফুলটাস বল লংঅনের উপর দিয়ে সীমানা পার করতে চেয়েছিলেন রাজা। তবে ধরা পরে সৌম্য সরকারের হাতে। ৫১ বলে ৪০ রান করেছেন এ অলরাউন্ডার।

টেইলরকে আউট করে জুটি ভাঙলেন অপু

ক্রমেই ভয়ঙ্কর হয়ে উঠেছিলেন জিম্বাবুয়ের উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান ব্রেন্ডন টেইলর। বেশ আগ্রাসী ব্যাট চালিয়ে জিম্বাবুয়ের ইনিংস মেরামত করেছেন, নিজেও তুলে নিয়েছেন হাফসেঞ্চুরি। তবে বড় ক্ষতি করার আগেই তাকে ফিরিয়েছেন নাজমুল ইসলাম অপু। এ বাঁহাতি স্পিনারের বলে স্লগ সুইপ করতে গেলে টপ এজ হয়ে মুশফিকুর রহীমের হাতে ধরা পড়েন। আউট হওয়ার আগে আগের ম্যাচের মতোই ৭৫ রান করেছেন তিনি। ৭৩ বলে ৮টি চার ও ৩টি ছক্কায় এ রান করেন তিনি। উইলিয়ামসের সঙ্গে গড়েন ১৩২ রানের দারুণ এক জুটি।

উইলিয়ামসের ফিফটি

এক প্রান্তে টেইলর আগ্রাসী দাপুটে ব্যাটিং করলেও আরেক প্রান্তে দেখে শুনে খেলছেন শন উইলিয়ামস।  জিম্বাবুয়ের ইনিংস মেরামত করে এর মধ্যেই তুলে নিয়েছেন নিজের হাফসেঞ্চুরি। নাজমূল ইসলাম অপুর বলে লংঅফে ঠেলে দিয়ে হাফসেঞ্চুরি স্পর্শ করেন তিনি। ৭৩ বলে আসে তার ৫০ রান। এ রান করতে ৪টি চার মেরেছেন এ ব্যাটসম্যান।

টেইলরউইলিয়ামসের শতরানের জুটি

দারুণ ব্যাটিংয়ের ধারাবাহিকতা ধরে রেখে শতরানের জুটি গড়েছেন শন উইলিয়ামস ও ব্রেন্ডন টেইলর। ১১৮ বলে এ জুটিতে আসে ১০০ রান। টেইলর তুলে নিয়েছেন নিজের হাফসেঞ্চুরি। হাফসেঞ্চুরির পথে আছেন উইলিয়ামসও।

টেইলরের হাফসেঞ্চুরি

দারুণ এক হাফসেঞ্চুরি তুলে নিয়েছেন জিম্বাবুয়ের উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান ব্রেন্ডন টেইলর। ৪৯ বলে নিজের হাফ সেঞ্চুরি তুলে নিয়েছেন এ ব্যাটসম্যান। বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজার বলে পয়েন্টে ঠেলে দিয়ে সিঙ্গেল নিয়ে ফিফটি স্পর্শ করেন এ অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান। হাফসেঞ্চুরির পথে ৫টি চার ও ২টি ছক্কা মেরেছেন তিনি।

উইলিয়ামসটেইলরের ৫০ রানের জুটি

দলীয় ৬ রানে দুই ওপেনারকে হারিয়ে চাপে পরা জিম্বাবুয়ে ঘুরে দাঁড়িয়েছে দুই অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান ব্রান্ডেন টেইলর ও শন উইলিয়ামসের ব্যাটে। এর মধ্যেই এ দুই ব্যাটসম্যান গড়েছেন ৫০ রানের জুটি।  শুরুতে কিছুটা ধীর গতিতে ব্যাট করলেও ধীরে ধীরে দুই ব্যাটসম্যানই চড়াও হচ্ছেন টাইগার বোলারদের উপর।

মাসাকাদজাকে ফেরালেন রনি

জায়গায় দাঁড়িয়ে খেলার মাসুলটা গুনলেন জিম্বাবুয়ে অধিনায়ক হ্যামিল্টন মাসাকাদজাও। তাকে বোল্ড করে দিয়েছেন তরুণ পেসার আবু হায়দার রনি। অফস্টাম্পের বাইরের বল জায়গায় দাঁড়িয়ে ড্রাইভ করতে চেয়েছিলেন জিম্বাবুয়ে অধিনায়ক। ব্যাটের কানায় লেগে বল লাগে স্টাম্পে। আউট হওয়ার আগে ১০ বলে ২ রান করেছেন মাসাকাদজা।

শুরুতেই সাইফউদ্দিনের আঘাত

ইনিংসের শুরুতেই সাফল্য পেয়েছে বাংলাদেশ দল। নতুন বল হাতে নিয়ে নিজের প্রথম ওভারেই উইকেট নিলেন সাইফউদ্দিন। সিভাস জুওয়াওকে বোল্ড করে দিয়েছেন তিনি। সাইফউদ্দিনের স্টাম্পে রাখা বল পা না বাড়িয়ে জায়গায় দাঁড়িয়ে খেলার মাসুল দিয়েছেন এ ওপেনার। ৩ বল মোকাবেলা করে রানের খাতা খুলতে পারেননি এ ব্যাটসম্যান।

বাংলাদেশ দল তিন পরিবর্তন

সিরিজ জিতলেও একাদশে খুব বেশি অদল বদল না হওয়ার ইঙ্গিত দিয়েছিলেন অধিনায়ক। তবে এদিন দলে তিনটি বদল আনা হয়েছে। প্রথম দুই ম্যাচে ব্যর্থ ফজলে মাহমুদ রাব্বির জায়গায় দলে এসেছেন সৌম্য সরকার।

অফ স্পিনার মেহেদী হাসান মিরাজের জায়গায় অভিষেক হয়েছে আরিফুল হকের। বিশ্রাম পেয়েছেন মোস্তাফিজুর রহমান। তার জায়গায় খেলছেন আবু হায়দার রনি। সিরিজে ব্যাবধান কমানোর ম্যাচে একাদশে দুই পরিবর্তন নিয়ে নেমেছে জিম্বাবুয়েও। দলে এসেছেন রিচার্ড নাগারাবা ও ওয়েলিংটন মাসাকাদজা।

বাংলাদেশ একাদশ: লিটন দাস, ইমরুল কায়েস, সৌম্য সরকার, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, মোহাম্মদ মিঠুন, আরিফুল হক, মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন, মাশরাফি মর্তুজা, নাজমুল ইসলাম অপু, আবু হায়দার রনি।

জিম্বাবুয়ে একাদশ: চিফাস জুওয়াও, হ্যামিল্টন মাসাকাদজা, ব্রান্ডেন টেইলর, শন উইলিয়ামস, সিকান্দার রাজা, পিটার মুর, এল্টন চিগুম্বুরা, কাইল জার্ভিস, রিচার্ড নাগারাবা, ওয়েলিংটন মাসাকাদজা।

টস জিতে ফিল্ডিংয়ে বাংলাদেশ

টানা তৃতীয় ম্যাচে টস জিতেছেন বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি মর্তুজা। শিশিরের কথা মাথায় রেখে এদিনও অনুমিতই ভাবেই নিয়েছেন ফিল্ডিং। প্রথম দুই ম্যাচ জিতে সিরিজ আগেই জিতে নিয়েছে বাংলাদেশ। এই ম্যাচ জিতে তাই সফরকারীদের হোয়াইটওয়াশ করতে চায় বাংলাদেশ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here