আবু হোসেনের গণমিছিল, ‘গৃহবন্দী’ সালাহ উদ্দিন

0
199
মহাজোটের প্রার্থী সৈয়দ আবু হোসেনের পথসভা। গতকাল দোলাইরপাড়ে। ছবি: প্রথম আলো

মহাজোটের প্রার্থী সৈয়দ আবু হোসেনের পথসভা। গতকাল দোলাইরপাড়ে। ছবি: প্রথম আলো

ঢাকা-৪ আসনে আওয়ামী লীগের মিত্র জাতীয় পার্টির প্রার্থী সৈয়দ আবু হোসেন গতকাল বৃহস্পতিবার গণমিছিল করেছেন। অন্যদিকে বিএনপির প্রার্থী সালাহ উদ্দিন আহমেদ গতকাল গণসংযোগ করেননি। তাঁর অভিযোগ, পুলিশ ও আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের কারণে তিনি ঘর থেকে বের হতে পারেননি।

আলোঢাকা-৪ আসনে আওয়ামী লীগের মিত্র জাতীয় পার্টির প্রার্থী সৈয়দ আবু হোসেন গতকাল বৃহস্পতিবার গণমিছিল করেছেন। অন্যদিকে বিএনপির প্রার্থী সালাহ উদ্দিন আহমেদ গতকাল গণসংযোগ করেননি। তাঁর অভিযোগ, পুলিশ ও আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের কারণে তিনি ঘর থেকে বের হতে পারেননি।

গতকাল বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে তিনটায় ধোলাইপাড় মোড় থেকে সৈয়দ আবু হোসেনের গণমিছিল শুরু হয়। মিছিল শুরুর আগে ধোলাইপাড় মোড়ে পথসভা করেন সৈয়দ আবু হোসেন। এ সময় তিনি লাঙ্গল প্রতীকে ভোট চান।

পথসভায় প্রায় ২০টি পিকআপ ও শতাধিক মোটরসাইকেল নিয়ে আওয়ামী লীগ ও জাতীয় পার্টির কদমতলী এবং শ্যামপুর থানা ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) ৪৭, ৫১, ৫২, ৫৩, ৫৪, ৫৮ এবং ৫৯ নম্বর ওয়ার্ডের কমিটির কয়েক হাজার নেতা-কর্মী অংশ নেন।

পথসভা শেষে সৈয়দ আবু হোসেনের নেতৃত্বে গণমিছিল বের হয়। মিছিলটি জুরাইন, পোস্তগোলা হয়ে শ্যামপুরে গিয়ে শেষ হয়। এই গণমিছিলে কদমতলী থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহাম্মদ নাছিম মিয়া, সাধারণ সম্পাদক মোবারক হোসেন, শ্যামপুর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি তোফাজ্জল হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক কাজী হাবিবুর রহমান, ডিএসসিসির ৫৩ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মোহাম্মদ নূর হোসেন, ৫৪ নম্বর কাউন্সিলর মো. মাসুদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে গতকাল প্রচারে নামেননি এই আসনের বিএনপির প্রার্থী সালাহ উদ্দিন আহমেদ। সাবেক এই সাংসদ বলেন, তাঁর বাড়ির চারপাশে পুলিশ ও আওয়ামী লীগের লোকজন ঘিরে রেখেছে। বাড়ি থেকে কাউকে বের হতে দিচ্ছে না। একপ্রকার গৃহবন্দী হয়ে আছেন তিনি। বিষয়টি নির্বাচন কমিশনকে জানানো হলেও কোনো লাভ হচ্ছে না।

তবে সৈয়দ আবু হোসেনের দাবি, কেউ সালাহ উদ্দিন আহমেদের প্রচারণায় বাধা দিচ্ছে না।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে শ্যামপুর থানা বিএনপির একজন নেতা বলেন, গ্রেপ্তার-আতঙ্কে বিএনপির নেতা-কর্মীরা এলাকাছাড়া। অনেকে সালাহ উদ্দিন আহমেদের বাড়িতে অবস্থান করছেন। ভয়ে বাড়ি থেকে বের হচ্ছেন না। এভাবে চলতে থাকলে নির্বাচনের দিন ভয়াবহ পরিস্থিতির সৃষ্টি হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here