আক্ষেপ, ক্ষুধা রয়ে গেছে আরিফুলের

0
48

শ্রীলঙ্কায় নিদহাস কাপে টি-টোয়েন্টি অভিষেক হয়েছিল আরিফুল হকের। কিন্তু ওয়ানডে দলের সঙ্গে ঘুরতে ঘুরতেও সুযোগ পাচ্ছিলেন না মাঠে নামার। এশিয়া কাপ থেকেই আরিফুল হকের অপেক্ষার শুরু। মাঝপথে উড়ে গিয়ে জুড়ে বসেও দুজন ম্যাচ পেলেন, তিনি পাননি। নতুন আরও দুজন এসে জিম্বাবুয়ে সিরিজেও নামতে পারলেন, এখানেও মিলছিল না সুযোগ। অবশেষে শেষ ম্যাচে এসে অভিষেক হয়েছে তার। অথচ কেবল তিন ওভার বোলিং পেয়েছেন, দল আগেভাগে জিতে যাওয়ায় ব্যাট করতে নামারই যে দরকার হয়নি।

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তিন দিনের প্রস্তুতি ম্যাচের দলে থাকায় তিনি আর নাজমুল হোসেন শান্ত রয়ে গেছেন চট্টগ্রামে। এই ম্যাচ খেলেই সিলেটে টেস্ট দলের সঙ্গে যোগ দেবেন দুজন। শনিবার দুপুর বেলা হোটেল বদলানোর ঝক্কির মধ্যেই কথা বলার সময় দিলেন। খেলতে নামার জন্য উন্মুখ আরিফুলের ক্ষুধাটা যে মেটেনি চোখমুখই বলে দিচ্ছিল তা।

প্রশ্ন করতেই মুখ থেকেও বেরুলো এরকম জবাব, ‘আমার দিক থেকে আসলে এখনও নিজেকে ওভাবে মেলে ধরতে পারিনি বা সুযোগ পাইনি ব্যাটিংয়ে, আমার আক্ষেপটা তাই এখনও যায়নি। আমার ক্ষুধাও এখনও মেটেনি।

’আমি একজন অলরাউন্ডার হিসেবে টিমে থাকা বা ব্যাটিং করা বা বোলিংয়ে ভাল কিছু দেয়া…আমি ওভাবে নিজেকে মেলে ধরতে পারিনি তো আমার আক্ষেপ এখনও আছে, ক্ষুধা এখনও আছে।’

আরিফুলকে দলে রাখা হয় ব্যাটিং অলরাউন্ডারের বিবেচনায়। কিন্তু দল খুঁজছে একজন পেস বোলিং অলরাউন্ডার। এই জায়গায় মোহাম্মদ সাইফুদ্দিনের চেয়ে কিছুটা ঘাটতির জায়গা আছে তার। নিজেই অনুভব করছে, নিয়মিত জায়গা পেতে হলে বল হাতে করতে হবে আরও উন্নতি, ‘আমি নিজেই টের পাচ্ছি আমার বোলিংটা আরও উন্নতি করা উচিত। বোলিং নিয়ে আমি মনযোগ দিচ্ছি। উন্নতি করার চেষ্টা করছি। ওয়ানডেতে যেন ১০ ওভার বোলিং করতে পারি সেরকমই চিন্তা-ভাবনা করছি।

টিম কম্বেনিশনের কারণেই দলে জায়গা পাচ্ছিলেন না। মন খারাপ করা ছাড়া অন্য কাউকে দোষ দেওয়ারও উপায় নেই। বাংলাদেশ দলে এখন যেমন প্রতিযোগিতা, দলে নিয়মিত জায়গা পাওয়াও মুশকিল। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে থিতু হতে পারবেন কিনা এটা তাই ছেড়ে দিয়েছেন অদৃষ্টের দিকে, ‘যদি আমি নিজেকে মেলে ধরতে না পারি তাহলে পারব কি পারবনা এটা উপর আল্লাহই জানেন। আমার দিক থেকে তৈরি থাকব যদি সুযোগ পাই ভাল সার্ভিস দেয়ার।’

‘পাকাপোক্ত একটা জায়গা…’ বলে কিছুক্ষণ আনমনে থাকালেন আরিফুল। হয়ত ভেতর ভেতর টের পাচ্ছেন একটা জায়গার জন্য তীব্র লড়াইয়ের ঝাঁজ। টেস্ট দলে থাকায় আপাতত পাখির চোখ করেছেন ওদিকেই, ‘চিন্তা করছি সামনে টেস্ট আছে যদি ভাল করি তাহলে হয়ত ওয়ানডেতে নিয়মিত হওয়ার সুযোগ পাব।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here