অ্যাপল, হুয়াওয়ের চেয়েও দামি ফোন আনছে শাওমি

0
195

বিশ্ববাজারে অ্যাপলের মোবাইলফোনগুলো পায় সবচেয়ে দামি ফোনের মর্যাদা। সেসব ফোনে থাকে এমনসব ব্যবস্থা যা একজন ক্রেতার কাছে ‘আশ্চর্য প্রদীপের’ মতোই আকর্ষণীয়। কিন্তু, সেই ঐতিহ্য ভাঙ্গার সংকল্প করছে চীনের শাওমি করপোরেশন।

বেইজিং-ভিত্তিক শাওমি চীনের দ্বিতীয় বৃহৎ মোবাইলফোন প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান হলেও এর স্বপ্ন দেশের সর্ববৃহৎ মোবাইলফোন প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান হুয়াওয়ে এবং বিশ্বের সর্ববৃহৎ অ্যাপল ইঙ্ক-কে টপকে যাওয়ার। তাই শাওমি সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিশ্বের সবচে দামি মোবাইলফোন তৈরি করার।

এমআইএক্স ৩ নামের এই ফোনটিতে থাকবে স্মার্টফোনের ইতিহাসে সবচে উন্নত প্রযুক্তি- এমনটি ঘোষণা দেওয়া হয় প্রতিষ্ঠানটির পক্ষ থেকে।

বলা হয়, শাওমির এই ফোনটি আগামী নভেম্বরে বাজারে ছাড়া হবে। এর প্রাথমিক দাম ধরা হয়েছে ৪৭৫ ডলার বা ৩,২৯৯ ইয়ান। তবে এর ‘ফরবিডেন সিটি’ বিশেষ সংস্করণের দাম পড়বে ৪,৯৯৯ ইয়ান বা ৭১৮ ডলারের বেশি।

দামি ফোনের বাজার যা অ্যাপল, স্যামসাং এবং হুয়াওয়ের দখলে রয়েছে এখন সেখানে প্রবেশ করার ইচ্ছা প্রতিষ্ঠানটির প্রধান লেই জুনের। তাই দামি ফোনের বাজারে ঢোকার জন্যে শাওমির এমন প্রস্তুতি।

কি থাকছে নতুন ফোনে?

এমআইএক্স ৩-কে ২০১৬ সালে বাজারে আসা এই সিরিজের চতুর্থ প্রজন্মের মোবাইলফোন হিসেবে উল্লেখ করে প্রতিষ্ঠানটির পক্ষ থেকে জানানো হয়, ৬.৪ ইঞ্চি পর্দার, কোয়ালকম ইঙ্ক প্রসেসর এবং স্লিক সিরামিক বডির এই নতুন ফোনটি জনপ্রিয় আইফোনকে প্রতিযোগিতার মুখে ফেলে দিবে।

এছাড়াও, গান এবং গেমের বাজারকে ভবিষ্যতের ব্যবসা হিসেবে দেখছে শাওমি। তাই বলা যায় এর ফোনসেটগুলোর ব্যবহারকারীরা এ দুটি বিষয়ে পাবেন বিশেষ সুবিধা।

এছাড়াও, সেলফির ব্যাকগ্রাউন্ড ঘোলা করার জন্যে থাকবে স্বয়ংক্রিয় ব্যবস্থা।

বিভিন্ন সুবিধার দিক বিবেচনা করে এমআইএক্স ৩-কে আইফোন এক্স এবং হুয়াইয়ের পি২০ এর সঙ্গে তুলনা করা যাবে।

শাওমির দৃষ্টি ইউরোপ, আমেরিকার বাজার

বেইজিংয়ের ফরবিডেন সিটিতে সমবেত সাংবাদিকদের উদ্দেশে গতকাল (২৫ অক্টোবর) শাওমির প্রধান লেই জুন বলেন, “ভবিষ্যতের প্রতিযোগিতা মোকাবেলা করার জন্যে আমরা আমাদের অভ্যন্তরীণ সক্ষমতা বাড়ানোর চেষ্টা করছি।” বড় বড় প্রতিষ্ঠানগুলো ক্যামেরা এবং কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার ওপর জোর দিচ্ছে উল্লেখ করে তিনি জানান, “এই দুটি বিষয়ই আগামীতে ঠিক করে দিবে কারা বাজারে বড় প্রতিষ্ঠান, আর কারা ছোট।”

ইতোমধ্যে শাওমি প্যারিসে দোকান খুলেছে। আর এখন তারা চোখ রাখছে যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here